অনলাইন আয় বিষয়ক কিছু ভূলধারণা।

অনলাইন ইনকাম কি?

ss6

বর্তমান সারা বিশ্বের প্রায় বেশীরভাগ দেশের আলোচিত বিষয় হল অনলাইন ইনকাম।উন্নত দেশগুলোর পাশাপাশি এখন আমাদের দেশের মত উন্নয়নশীল দেশগুলোতও এর ছোঁয়া লেগেছে বেশ কয়েকবছর ধরেই।এই দেশে কম্পিউটার ও ইন্টারনেট সুবিধা সার্বজনীন থাকার কারনে জেলা শহরগুলোও এই সুবিধা থেকে বাদ যাচ্ছে না। যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তারা সবাই এই পদ্ধতিকে কাজে লাগিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।ইন্টারনেট থেকে অর্থ উপার্জনের বিষয়টি এখন আর কোন স্বপ্ন নয়।একটি কম্পিউটার ও একটি ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে সেইসাথে কিছু পরিশ্রম ব্যয় করে চেষ্টা করতে পারবেন অনলাইনে উপার্জনের।কিন্তু জানতে হবে এর সঠিক ব্যবহার পদ্ধতি।শুধু Online Income/Earn করলেই হবে না সেই সাথে অর্জিত টাকা দেশে আনার মত ব্যবস্থাও থাকতে হবে।ইন্টারনেটে কাজ করে শুধু অর্থ উপার্জন করলেই চলবে না, আমাদের এই অর্জিত টাকা বৈধ পদ্ধতিতে কিভাবে সহজে এসে আপনার কাছে পেীঁছতে পারে তা আগে থেকেই নিশ্চিত করে রাখতে হবে।তাহলেই ভালভাবে আয় করা সম্ভব।কিছু কিছু ওয়েবসাইট আছে যারা অধিক টাকার প্রলোভন দেখিয়ে জনগনের মুল্যবান অর্থ ও শ্রমের টাকা নিয়ে পুরোপুরি গা ঢাকা দিয়ে থাকে,পরবর্তীতে তাদেরকে খুঁজেও পাওয়া যায় না।এদের থেকে সাবধান থাকতে হবে।আসলে এরা এমনভাবে প্রলোভন দেখায় যে লোভ সামলানোই মুশকিল হয়ে যায়।মোটকথা হল ইন্টারনেট ব্যবস্থাকে কাজে লাগিয়ে অর্থ উপার্জন করাই হল অনলাইন ইনকাম।

অনলাইন আয় বিষয়ক কিছু ভূলধারণা।

earn1

যারা অনলাইনে আয় সম্পর্কে নতুন, তারা অনলাইনে আয় করার পদ্ধতিগুলো খুজে বেড়ান এবং খোজ পান বিভিন্ন ব্লগ, ওয়েবসাইটে বিভিন্ন পদ্ধতি সম্পর্কে। তারপর তারা এক বা একাধিক পদ্ধতি ব্যবহারের মাধ্যমে উপার্জন করার চেষ্টা করেন। কোন সু-নির্দ্দিষ্ট নিয়ম ছাড়া। যেহেতু তারা নতুন সেহেতু তাদের ভিতরে কিছু ধারনা থাকে যা ভুল,  কেউ কেউ লোভের বশবর্তী হয়ে ভুল পথে পা এগোয় এবং ফল হিসাবে মুল্যবান সময় নষ্ঠ হয়। আবার কেউ কেউ সাফল্য না পেয়ে চিন্তা করেন এ পথে থাকাটা কি ঠিক না ভুল? নাকি এসব বাদ দিয়ে প্রচলিত চাকরি বা ব্যবসাতে জড়িয়ে পড়ব। প্রকৃতপক্ষে অনলাইন বিষয় সম্পর্কে কিছু ব্যাপার আগে থেকে জানা থাকলে ভুলের পরিমান অনেকটাই কম থাকে এবং সাফল্য পাওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যায়। তাহলে আসুন দেখি নতুনরা কোন ধরনের ভুল সবচেয়ে বেশী করে যা থেকে বিরত থাকা ভাল।

3-Easy-Steps-How-to-Earn-Money-Online.png

সহজে অর্থ উপার্জন:

যারা নতুন তারা প্রথমে ইন্টারনেটে ছুটাছুটি করে থাকে সহজে কিভাবে online Income করা যায় এসব পদ্ধতি খুজে বেড়াতে।এটা স্বাভাবিক কারন তারা নতুন। কিন্তু সহজে ইনকাম বিষয়ক তথ্য খুজতে গিয়ে তারা অনেকেই বিভিন্ন ধরনের ভুয়া পিটিসি সাইটের সন্ধান পায়। যে সাইটগুলোতে বলা হয় প্রতি ক্লিক ১০০ ডলার/প্রতি ক্লিক ২০০ডলার কিংবা আরো বেশী। মনে রাখবেন  সত্যিকারের PTC সাইট পেমেন্ট কম দেয়। যা হয়ত বা আমাদের চোখ ভরে না। সাধারনত নেট বিল তোলা সম্ভব নাও হতে পারে। তবে  পিটিসির ক্ষেত্রে যে সাইটগুলিতে বেশী পাওয়ার কথা বলে বুঝতে হবে সেগুলো ভুয়া হিসেবে ধরে নিতে পারেন, সেদিকে পা না বাড়ানো উচিত বলে আমি মনে করি। তবে পিটিসি সাইট নিয়ে আমি একটি বিস্তারিত পোষ্ট করব। আপনারা সংগ্রহে থাকবেন।

websites-to-earn-money-online.jpg

অনলাইনে উপার্জন হয়ত সবার জন্য নয়:

অনেকে সাফল্য না পেয়ে মনে করেন-আমার জন্য হয়ত অনলাইনে ইনকাম করা সম্ভব নয়। আবার অনেকে মনে করেন বাহিরের জগতে কিছু হচ্ছে না অনলাইন হচ্ছে শেষ্ ঠিকানা এটি বিরাট ভুল ধারনা। অনলাইন আয়ে সবচেয়ে সহজ কাজ ডাটা এন্ট্রি থেকে শুরু করে প্রোগ্রামিং এর মত কঠিন কাজও রয়েছে অনলাইনে করে আয় করছে। আপনি অবশ্যই এর ভিতরেই পড়েন। তাহলে আপনি কেন কাজ করতে পারবেন না। যখন কেউ পৃথিবীতে আসে তখন সে কখনও শিখে আসেনি তার পরিশ্রম ও মেধা বিকাশের মাধ্যমে তা সে অজর্ন করে। তাই আপনার যোগ্যতা, শ্রম ও মেধা দিয়ে কাজ করতে হবে। তাহলে সাফল্য আসবে। সেক্ষেত্রে আপনার যেটি বিশেষ প্রয়োজন তা হল ধৈর্য্। ধৈর্য্ ধরে কাজ শিখতে পারলে আপনি সাফল্য পাবেন। তবে নিজেই নিজে ভাবুন আপনি কোন কাজের জন্য এবং কোন কাজটিতে পারদর্শী। কাজ যেহেতু অনলাইনে এর সমাধানও পাবেন অনলাইনে।

how-to-make-money-online

বাংলাদেশে অনলাইনে লেনদেনের ভাল ব্যবস্থা নেই তাই কাজ করে কোন লাভ নেই:

হ্যা,কিছুটা ঠিক। বাংলাদেশে এখনও পে-পাল নেই। অনলাইন থেকে টাকা ক্যাশ করার খুব সহজ মাধ্যম হচ্ছে পে-পাল। কিন্তু পে-পাল আমাদের বাংলাদেশে সার্পোট করে না। তবে ভয়ের কিছু নাই। তবে এখন টাকা হাতে পাওয়ার অনেক পেমেন্ট মেথড রয়েছে। যেমন- পেয়জা, পারফেট মানি, পাইনিয়ওর ইত্যাদি বাংলাদেশে সাপোর্ট করে । তবে বেশ কিছু সাইট পে-পালের দখলে। তাই বলে কি  বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সাররা অনলাইনে ইনকাম করা থেকে বিরত আছে? না! ফ্রিল্যান্সার মার্কেটপ্লেস গুলিতে কি বাংলাদেশীরা সুনামের সাথে উপার্জন করছে না? করছে! মনে রাখবেন সমস্যা যত বেশী সমাধান তার থেকেও বেশী।

ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পেইড ডোমেইন-হোস্টিং দরকার:

ভাল আয় করার জন্য টাকা খরচ করতে হয়। নিজের কেনা ডোমেইন-হোস্টিং থাকলে উপকার বেশী। তার মানে এই নয় যে, টাকা খরচ না করলে আয় করা সম্ভব নয়। সম্পূর্ন বিনামুল্যে সাইট তৈরি করে সেখান থেকে ইনকাম করা যায়। বিভিন্ন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান সে ব্যবস্থাই করেছে।

ওয়েবসাইট বা ব্লগে বেশী এড থাকলে বেশী আয়:

যারা adsense,chitika এরকম বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা থেকে অর্থ উপার্জন করেন বা করতে চান। তাদের ভিতর অনেকেই এরকম ভুলধারনাটি পোষন করেন। এভাবে কখনও বেশী ইনকাম করা যায় না বরং income কমে যায় সেই সাথে সাইটের রেঙ্কিং এবং সুনামও বাধাগ্রস্থ হয়।

E-commerce

খরচ ছাড়া ভাল আয়:

কম খরচে বেশী আয় আশা করা যায় না। টাকা খরচ করেও নিজের ব্যবসাকে লাভবান করতে হয়।যেমন টাকা খরচ করে ডোমেইন-হোস্টিং কেনা, সাইটের পরিচিতি বাড়াতে বিজ্ঞাপন দেয়া ইত্যাদি।

নতুন সাইটের পরিচিতি বাড়াতে বিভিন্ন সফটওয়্যারের ব্যবহার:

অনেকে সাইটের পরিচিতি বাড়ানোর জন্য ব্যাপক হারে এসইও করেন। বিভিন্ন থার্ড পার্টির সেবা গ্রহন করেন।এটা করা উচিত নয় সাইট ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা পায় এটাই স্বাভাবিক। প্রচুর পরিমানে সফটওয়্যার দিয়ে এসইও করলে সার্চ ইন্জিন আপনার সাইটকে গুগল ব্লাকলিস্টে রাখতে পারে।

কাজ শেখার ভাল ব্যবস্থা নেই:

আপনি যেহুতো কাজ করবেন অনলাইনে সেহেতু এর সমাধানও পাবেন অনলাইনে। অনলাইনের কিছু কাজ খুব একটা কঠিন কাজ না হলেও সাধারনত কোন ট্রেইনিং সেন্টারে যেতে হয় না। তবে আপনি যদি হাতে কলমে শিখতে চাইলে তাহলে ভাল। আবার অনলাইনে পড়াশোনা করেও আপনি শিখতে পারবেন। সেক্ষেত্রে অনলাইনে বহু দক্ষ লোক তাদের  জ্ঞান শেয়ার করে থাকেন। শেখার জন্য সেগুলোই অনেকটা কাজে আসবে।  তাই কিছু ভূলধারণা থেকে আমাদেরকে সরে আসতে হবে। বর্তমান বিশ্ব টেকনোলজির উপর নির্ভর হয়ে পড়ছে। তাই অনলাইন থেকে আয় করা খুব একটা কঠিন নয় তবে আমি যে কাজটি করব সেটি কাজটি সম্পর্কে আমার জানা থাকে তাহলে অনেক সোজা। তবে আমরা জানি না বলে আমার জন্য কঠিন আর যারা জানে তারা তাদের সাহায্য নিয়ে অনলাইন সম্পর্কে জানুন।

ধন্যবাদ, আশা করি ব্লগটি ভাল লেগেছে।

inspire_0

আপনার একটি মন্তব্য একজন লেখককে ভালো কিছু লিখার অনূপ্রেরণা যোগাই তাই প্রতিটি পোস্ট পড়ার পর নিজের মতামত জানাবেন এবং সম্মানিত অতিথিদেরকে জানাচ্ছি এমন কোন কমেন্ট করবেন না যা লেখকের মনে কষ্ট পাই। কারণ একটা ভাল মন্তব্য লেখক কে ভাল কিছু লেখার অনূপ্রেরণা দেবে।

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s