আজই Payza Account তৈরি করুন।

আজ আমি অনলাইন ব্যাংক Payza তে কিভাবে Account তৈরি করতে হয় সে সম্পর্কে আপনাদের সাথে শেয়ার করব ।

অনলাইনে আমরা অনেকেই ইনকাম করি এই ইনকামের অর্থ বিভিন্ন কার্ড বা একাউন্টের সাহায্য যেমন– পেইজা, পেপাল, স্ক্রিল, পারফেট মানি ইত্যাদির মাধ্যমে আমাদের লোকাল ব্যাংক একাউন্টে নিয়ে আসা বা নিজের পকেটে আনা যায়। কিন্তু সমস্যা হল –অনেকেই ঠিক বুঝতে পারেন না আসলে এটা কোন সমস্যা না। এখানে কি ভাবে একাউন্ট ওপেন করতে হয়, কি সুবিধা বা অসুবিধা আছে ইত্যাদি। তাই আজ আমি আপনাদের সাথে বাংলাদেশে সাপোর্ট করে এমন একটি অনলাইন ব্যাংক (পেইজা) তে কিভাবে Account তৈরি করতে হয় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আশা করি অনেকের উপকারে আসবে।

Payza কি ? Payza Account সম্বন্ধে বিস্তারিত।

Payza একটি পেপালের মতই ইন্টারনেটে অর্থ লেনদেনের সহজ ও জনপ্রিয় পদ্ধতি। মুলত যারানেটের বিভিন্ন সাইটে ইনকাম করেন তারা তাদের অর্থ গ্রহনের জন্য,  Payza ব্যবহার করেন।Payza (যার পূর্বের নাম এলার্টপে) এর সদর দপ্তর বাড়ী কানাডাতে। অর্থাৎ এটি একটি কানাডিয়ান প্রতিষ্ঠান। ২০০৪ সালে মাত্র ৬ জন  কর্মচারী নিয়ে এলার্ট পে যাত্রা শুরু করে। এখন এটি বর্তমানে প্রায় ২৫০ জনের অধিক কর্মচারী ও ১ কোটির বেশী গ্রাহক নিয়ে একটি বিশাল প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন প্রায় ১০,০০০ নতুন ব্যবহারকারী এলার্ট পে সাইটে রেজিষ্ট্রেশন করছে ।বিশ্বের প্রায় ২০০ টি দেশে এর সার্ভিস চালু রয়েছে। এখানে প্রায় ২৫ টি মুদ্রায় অর্থ লেনদেন করা হয়।তাছাড়া এই প্রতিষ্ঠানের ৫২ টি দেশে জোনাল ব্যাংকিং সুবিধা প্রদান করে থাকেন। আমাদের দেশেও এখন Payza কোম্পানির অফিস রয়েছে এবং Payza বাংলাদেশ সরকারের সাথেও চুক্তিবদ্ধ।

কিভাবে Payza তে Account তৈরি করবেন ?

Screenshot_82

প্রথমে এখানে ক্লিক করুন। তারপরে দেখুন Payza এর ওয়েব সাইট ওপেন হয়েছে সেখান থেকে উপরের ডান কোনায় দেখুন MENU লেখা আছে সেখানে ক্লিক করুন। এবার দেখুন বাম পাশে SIGN UP লেখা আছে সেখানে ক্লিক করুন। এবার যে পেজটি এসেছে সেখানে দেখুন দুইটি অপশন আছে।

১.     Personal 

২.     Business

এখন আপনি আপনার পছন্দ মত যে কোন একটি অপশন সিলেক্ট করতে পারেন। মনে করুন আপনি Personal অ্যাকাউন্ট খুলবেন তাহলে Personal এর নিচে Select বাটনে ক্লিক করুন ।

Screenshot_1

তারপরে যে অপশনটি এসেছে সেখানে দেখুন আপনাকে কিছু তথ্য পূরণ করতে বলছে। প্রথমে আপনার নাম দিতে বলছে তো আপনি ঐ জায়গায় আপনার নাম দিন আমি দিলাম onlineaayojan , তারপরে Salutation এর ঘর থেকে যে কোন একটি অপশন সিলেক্ট করুন (MR. or Mrs) । তারপরে First Name and Last Name এর ঘরে আপনার নাম দিন। মনে রাখবেন এখানে যে নাম দিবেন আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ও কিন্তু সেই নামে হতে হবে, নাম যদি ভুল দেন তাহলে কিন্তু তা আর পরিবর্তন করা যাবে না অতএব সাবধান । তারপরে Email address এর ঘরে আপনার একটি ই-মেইল দিন। ই-মেইল এড্রেস এর ক্ষেত্রেও ঐ একই কথা কোন ভুল করা যাবে না এখানে আপনার সঠিক ই-মেইল এড্রেসটি দিন। তারপরে Password এর ঘরে আপনার একটি পাসওয়ার্ড দিন, পাসওয়ার্ডটি অবশ্যই একটি বড় হাতের ও একটি ছোট হাতের অক্ষর সহ ৮ থেকে ২০ ক্যারেক্টার এর মধ্যে হতে হবে । তারপরে GET STARTED বাটনে ক্লিক করুন। এবার দেখুন আপনাকে আপনার যে ই-মেইলটি এখানে এড করেছেন সেখানে প্রবেশ করতে বলছে কারণ সেখান পেইজা থেকে একটি লিঙ্ক পাঠানো হয়েছে যে লিঙ্কে ক্লিক করুন আপনার অ্যাকাউন্টি ভেরিফাই করতে হবে।

Screenshot_2

 

আশা করি আপনার অ্যাকাউন্ট কিভাবে খুলতে হবে তা বুঝতে পেরেছেন, তারপরেও যদি কেও বুঝতে না পারেন তাহলে কমেন্টে জানাবেন আমি উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব ।

আজ এই পর্যন্ত আবার অন্য কোন বিষয় নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হব ইনশাল্রাহ। ততদিন ভাল থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

w

Connecting to %s