Tips for the Holidays — MakeItUltra™

Written by Official MakeItUltra™ Contributor: Caitlyn K., MA. (USA) Founder of: Change Your Season This time of year is a time for family, friends and loved ones to spend time together and reflect on the year that has been. While the holiday season is welcomed by many, it can also come with a lot of stressors. […]

via Tips for the Holidays — MakeItUltra™

জামদানী সাড়ি

Jamdani Saree JM-0042

This saree made by high-quality silk and fine cotton fabric. The most skilled weavers are weaving our sarees, that’s why our sarees are fine compared to others.
We never use nylon fabric instead of silk. We use 80count fine cotton fabric with best silk fabric. Our exclusive sarees are Totally unique and no one will get duplicate copy until they order the same saree . Each of exclusive jamdani took at least 21days to complete. Normal sarees are made in 7 days.

 

পবিত্র ঈদ –উল-আযহা উপলক্ষে ব্রানোর পক্ষ থেকে সকল শুভানুধ্যায়ীদের জানাই ঈদ মোবারাক।

হাজার হাজার বইয়ের সংগ্রহ থেকে অনলাইনে ঘরে বসে কিনুন আপনার পছন্দের যে কোন বই

নির্বাচিত কিশোর গল্প

mob-s2982016124030

Buy- 160 TK

কর্মক্ষেত্রে সফলতা

mob-s3182016114848

Buy-450TK

http://www.branoo.com/productdetail/51474/কর্মক্ষেত্রে-সফলতা/6309

ফেইস বুকের ব্যবহার কমছে tsu.co ব্যবহার বাড়ছে বিস্তারিত পড়ুন বুঝতে পারবেন..

whoareyou

ফেইস বুক ব্যবহার করে আমরা সামাজিক যোগাযোগ রক্ষা করি, কিন্তু সামাজিক সাইট tsu.co ব্যবহার করে যোগাযোগ রক্ষা করছে পাশাপাশি Incomeও করছে।দয়া করে একটু  ধৈর্য্য্ ধরে পড়ুন বিস্তারিত  জানতে পারবেন।

ছেলে-মেয়ে, ছোট-বড়, মোবাইল দিয়ে-পিসি/ল্যাপটপ দিয়ে, চাকরিজীবী-বেকার, ছাত্র-ছাত্রী; সকল শ্রেণীর-সকল পেশার সবাই এই কাজটা করতে পারবেন কিন্তু পুরো পোষ্টটি পড়ে কাজে শুরু করবেন। Continue reading

মেমোরি কার্ড থেকে মুছে গেলে ছবি ফিরিয়ে আনার জন্য

অনলাইন আয়োজনঃ কয়েকদিন আগে প্রিয় মানুষটির সঙ্গে অনেকগুলো মনের মতো ছবি ফ্রেম বন্দী করেছিলেন তার মুঠোফোনে। আজ ঘুম থেকে ওঠার পর ছবিগুলো আর খুঁজে পাচ্ছেন না। কীভাবে যেন ছবিগুলো মুছে গেছে মেমোরি কার্ড থেকে। সেঁজুতির মতো এধরনের বিড়ম্বনার শিকার অনেকেই।

মেমোরি কার্ডের

এই বিপত্তির হাত থেকে বাঁচতে একটি সহজ এবং কার্যকর পদ্ধতি গ্রহন করতে পারেন।

আপনি যদি দেখেন আপনার প্রয়োজনীয় কোন ছবি মুছে গেছে, তাহলে ওই মেমোরি কার্ড থেকে অন্য কিছু মুছে ফেলবেন না কিংবা নতুন করে কোন ফাইল রাখবেন না। Continue reading

Facebook এর জনক মার্ক জুকারবার্গ

মার্ক জুকারবার্গকে (Mark Zucker Berg) নিয়ে কিছু তথ্য!

Mark-Zuckerberg-Facebook-top-ten

  • ফেসবুকের প্রকৃত রং নীল এর কারন হল মার্ক জুকারবার্গ বর্ণান্ধ। মার্ক জুকারবার্গ যে রঙটা সবচেয়ে ভালো দেখে সেটা হল নীল।
  • মার্ক জুকারবার্গ এর একটা কুকুর আছে, যার নাম বিস্ট। এবং এই কুকুরের নামে একটা পেজ আছে।
  • মার্ক জুকারবার্গ বন্ধুদের কাছে জুক নামে পরিচিত এবং তার মা তাকে প্রিন্সলী ডাকেন।
  • মার্ক জুকারবার্গ চাইনিজ ভাষা শিখেছিলো ২০১০ সালে যাতে সে তার শ্বশুর বাড়ির লোকদের সাথে কথা বলতে পারে।
  • মার্ক জুকারবার্গকে নিয়ে “দি সোশিয়াল বুক” নামে একটা মুভি হয়েছিলো। মার্ক বলেছিলো যে অই মুভির সাথে তার রিয়েল জীবনের এক মাত্র যে জিনিসটা মিলে তা হল মুভির নায়কের ড্রেস( টি-শার্ট )।
  • মার্ক জুকারবার্গ এর সাথে তার গার্লফ্রেন্ড প্রিসিলা চ্যান এর প্রথম দেখা হয়েছিলো হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির একটা টয়লেটের লাইনে, ২০০৩ সালে।
  • মার্ক জুকারবার্গ, বিয়ের সময় প্রিসিলার হাতের আংটির ডিজাইন করেছিলো।
  • মার্ক জুকারবার্গ এর বিয়েতে যেসব লোকজন এসেছিলো তারা জানতো না যে তারা বিয়েতে এসেছে যতক্ষনপর্যন্ত না বলা হয়েছে। সবাই ভেবেছিলো প্রিসিলার গ্রাজুয়েশান পার্টি এটা।
  • গুগল এর গুগল প্লাসে মার্ক জুকারবার্গ এর সবচেয়ে বেশি ফলোয়ার রয়েছে, যা অন্য কারো নেই।
  • মার্ক জুকারবার্গ এর টুইটার একাউন্টের ইউজার নেম হচ্ছে finkd.
  • ইয়াহু ফেসবুক কিনতে চেয়েছিলো ১ বিলিয়ন ডলারে। মার্ক জুকারবার্গ সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলো।
  • মার্ক জুকারবার্গ গ্রিন ডে, টেয়লর সুইফট, শাকিরার শুনতে পছন্দ করেন।
  • কোন ফেসবুক ইউজার মার্ক জুকারবার্গ এর ফেসবুক প্রোফাইল ব্লক করতেপারবেনা
  • মার্ক জুকারবার্গ পারতপক্ষে স্যুট ( ফর্মাল ড্রেস ) পরেন না।

মার্ক জুকারবার্গ সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন Click here Collected from the Internet

ধন্যবাদ।

Unknown More information-আরো অজানা তথ্য জানতে = Click Me

Information Sources + Unknown Data = Answer Click here

 

Steve Jobs Top 5 Secrets

এ্যাপলের সিইও স্টিভ জবসের পাচটি সিক্রেট রহস্য

আমরা “বিজনেস” এবং “সেলিব্রেটি” শব্দ দুটিকে এক সাথে কোন সময়ই দেখি না, কিন্তু স্টিভ জবস ছিলেন দুটি শব্দেরেই অধিকারী। একটি জিনিস লক্ষ্য করবেন, আমরা শুধু এ্যাপল ইংকস এর পন্যটিই বা তার মূল্যই বিবেচনা করি নাই, বরং আমরা স্বয়ং সিইও কে দেখেছি, তার আলাপ আলোচনা শুনেছি। অক্টোবর ৫, ২০১১ সালের মৃত্যুর পর আমরা দেখেছি যে, অসংখ্য ওয়েবসাইট, সেলিব্রেটিস, প্রযুক্তি পন্ডিত এবং এমেরিকার প্রেসিডেন্ট পর্যন্ত তাকে শ্রদ্ধাঞ্জলী দিয়েছেন। জবসকে নিয়ে আমরা এতো আলোচনা করতে চাই কেন? কোন ব্যক্তিকে তখনই স্টাডি করতে প্রলুব্ধ করে, যখন আসলেই ব্যক্তিটি থাকে আইডিয়াতে পরিপূর্ণ, যখন সে তার নিজস্ব রাজত্ব তৈরি করে নেন। মানুষ তখন তার মিথগুলো বের করার কাজে লিপ্ত থাকেন।

1000509261001_1822941199001_BIO-Biography-31-Innovators-Steve-Jobs-115958-SF

তাছাড়াও, জবস ছিলেন একজন আকর্ষনীয় ব্যক্তি। তিনি ছিলেন কলেজ ছিটকে পড়া ছাত্র যিনি জিতেছিলেন “ন্যাশনাল ম্যাডেল অব টেকনোলজি”। রহস্যময় ব্যক্তি ও আকাংখিত বস হিসেবে তার ব্যাপক সুনাম ছিলো । জবস তার জীবনের বিস্তারিত খুব গোপন রেখেছিলেন এবং তার কোম্পানিও তার গোপনীয়তা রক্ষা করেছে, যা আমাদেরকে আরও প্রলুব্ধ করে। এখন আমরা দেখবো তার জনপ্রিয় পাচটি জনপ্রিয় মিথগুলো:

. স্টিভ জবস তার কর্মচারীদেরকে কোন কারন ছাড়াই ভয় দেখাতেন

জবসের রহস্যময় ভার্সন তাকে দিয়েছে বিভিন্ন গঠন। যে ব্যক্তিটি ছিলেন একজন সেলসম্যানগুরু, সম্পূর্ণ বিকৃত (ডিসটর্টেড) মার্কেটে ক্রেতাদেরকে নতুন পন্যের প্রতি আকৃষ্ট করতেন খুব সহজে- এবং তিনিই একজন অনমনীয় বস, প্রতিযোগী এবং কর্মচারী সবার কাছেই ছিলেন নির্মম ব্যক্তি।

বাস্তবতা আরও জটিল। স্টিভ জবস ছিলেন খুতখুতে এবং খুব ছোট বিষয়ে মনোযোগ দিতে পারতেন খুব ভালোভাবে। একজন ইঞ্জিনিয়ারের কাছ হয়তো এটাকে গুরুত্বপূর্ণ মনে না ও হতে পারে। কিন্তু যদি তার কাজ জবসকে খুশি করতে না পারতো তিনি সব শো বন্ধ করে দিতেন।

যে ভালো করতো এবং কোন ফলাফল বয়ে আনতে পারতো, তার প্রশংসায় স্তুপ ফেলে দিতেন। কিন্তু যে কর্মচারীটি একদিন এতো প্রশংসিত হয়েছে, ঠিক অন্যদিন তাকে সমালোচনা করতে পিছ পা হতেন না। জবস অনেক সময় তার কর্মচারীদেরকে অযথাই রাগ দেখাতেন এবং তাদের কাজ ভালো হলেও তর্ক করতেন। তার কারন ছিলো কর্মচারীরা তাদের অবস্থানকে ডিফেন্ড বা রক্ষা করতে পারে কিনা।

. জবস কখনো জাপান ফিরে যাবেন না বলে প্রতিজ্ঞা করেছিলেন

এটি একটি মহান গল্প: ২০১০ সালে কিয়োটো, জাপানে অবকাশ যাপন করেছিলেন। অবকাশ যাপনের পর তিনি এয়ারপোর্টে গেলেন তার প্রাইভেট জেট প্লেন দিয়ে দেশে ফিরবেন। কিন্তু এয়ারপোর্টের নিরাপত্তাকর্মী জানালো তার ব্যক্তিগত বিমানে যাওয়ার অনুমতি নাই। তারা কেন এ কথা বলবে? কারন তিনি নিনজা থ্রোয়িং স্টারস কিনেছিলেন। তারপর তিনি প্রতিজ্ঞা করেছিলেন যে আর জাপান আসবেন না। (তথ্যসুত্র)

. প্রতিদিন একই পোষাক পরিধান করতেন

আড্রিয়ান মঙ্ক ছিলেন একজন টিভি ডিটেকটিভ যার পোশাক নির্বাচনের ক্ষেত্রে অত্যাধিক-বাধ্যতামূলক ব্যাধি কাজ করতো। তার জন্য পোশাকটি ছিলো প্লেইড এর উপর ব্রাউন কালার। কিন্তু এটা ছিলো তার ডিজাইনার কর্তৃক দেয়া কস্টিউম। রিয়েল স্টিভ জবস কোন ওযার্ডরোব ব্যবহার করতেন না এটা আমরা নিশ্চিত (তথ্যসূত্র)। তিনি সবসময় পাবলিক এর সামনে কালো মক টার্টলনেক (mock turtleneck) এবং জিন্স পড়তেন। কেন? তিনি কখনই বলেন নাই।

. নিরাপত্তা এবং গোপনীয়তার জন্য জবস সবসময় নাম্বার প্লেটের বদলে গাড়িতে বারকোড ব্যবহার করতেন

একদা এক ব্লগার এ্যাপল এর পার্কিং লটে পার্ক করা সিলভার কালারের মার্সিডিজ এর একটি ছবি শেয়ার করেছিলো। গাড়িটির পিছনের দিকে কোন লাইসেন্স প্লেট নাই, এবং ফ্রেমের ভিতরে একটি বারকোড স্টিকার লাগানো ছিলো (তথ্যসূত্র)। ফরচুন ম্যাগাজিন এ বলা হয়, তিনি পার্কিং টিকিট না কিনার উদ্দেশ্যেই লাইসেন্স প্লেটটি খুলে রাখতেন। তাছাড়া, জবস গাড়ীর আরও অন্যান্য নিয়মনীতিও ভঙ্গ করতেন। এ ব্যাপারে ‍গুগলে সার্চ দিলে আরও অনেক আর্টিকেল পাবেন।

. এ্যাপল কর্পোরেশন তাকে কম্পানি চালানোর জন্য এক ডলার পরিশোধ করে

১৯৯৭ সাল থেকে ২০১১ পর্যন্ত যখন তিনি সিইও থেকে নেমে যান, বছরে এক ডলার বেতন হিসেবে পেতেন(তথ্যসূত্র)। প্রকৃতপক্ষে, কখনো কখনো কয়েক বছর মিলিয়ে এক ডলার হতো। তার যা ইনকাম ছিলো তা দিয়ে আইটিউন্স থেকে ট্যাক্স সহ একটি গানও কিনতে পারেন নি। তাহলে কেন সেখানে চাকরী করেছিলেন? কারন, এ্যাপল উচ্চ বেতন এর পরিবর্তে এমপ্লয়ীদেরকে পারফরমেন্স এওয়ার্ড দিতো যা তাদেরকে বহুদিন ধরে এই প্রতিষ্ঠানে চাকরী করার জন্য আকর্ষিত করতো। অবশ্যই জবস বছরে এক ডলারের বেশি আয় করতো। ২০০০ সালে রেকর্ড পরিমান কম্পিউটার বিক্রি করতে পারার কারনে তাকে ৮৮ মিলিয়ন ডলার দিয়ে প্রাইভেট জেট প্লেন দিয়ে ধন্যবাদ জানানো হয়। ফোর্বস ২০১০ এর মতে, তিনি ছিলেন বিশ্বের ১৩৬ তম ধনী ব্যক্তি।

blog-images-1349202732-fondo-steve-jobs-ipad

জবস এর নেতৃত্বদান পদ্ধতি অন্যান্য সকল গাইডের বিপক্ষে যেতে পারে। তবে তার নেতৃত্ব ভোক্তাদের জন্য এ্যাপলকে এনে দিয়েছিলো সফল কিছু ইলেক্ট্রনিকস যা মার্কেট শেলভকে নাড়া দিয়েছিলো। তার কঠোর ও নির্মম হওয়ার রেকর্ড থাকা সত্বেও, জবস অর্জন করেছিলেন ব্যাপক সম্মান।

ধন্যবাদ.

আরো অজানাকে জানুন